মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন এর এক টিকিটে দুই নাটক মঞ্চস্থ

Header

রির্পোটিং মহসিন পলাশ : গতকাল ২৫ মে ২০২২ ইং তারিখ সন্ধ্যা ৭.৩০ টায় স্টুডিও থিয়েটার হল, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ঢাকায় মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন এর এক টিকিটে দুই নাটক আমিনুল হক আমীন রচিত ও নির্দেশীত “ঘুন” ও “চতুর ভোলা” মঞ্চস্থ্য হয়ে গেল। পূর্ব নির্ধারিত ঠিক ৭.৩০ টায় শুরু হয় নাটক “ঘুন”। বর্তমান করোনা মহামারী পরবর্তী এই কঠিন সময়ে নাট্য দলকে সচল রাখা এবং থিয়েটার কর্মী, শিল্পী এবং দর্শকদেরকে হলে ফিরানোর প্রকৃয়ায় স্বল্প ব্যায়ে স্বল্প সময়ের এই এক টিকিটে দুই নাটক মঞ্চায়নের সিদ্ধান্ত নেন মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন এর দল প্রধান বিশিষ্ট থিয়েটার ব্যক্তিত্ব, অভিনেতা, নাট্যকার, নির্দেশক আমিনুল হক আমীন। প্রায় ২৬ বছরের থিয়েটার চর্চায় মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন বাংলাদেশের থিয়েটার অঙ্গনের অন্যতম একটি নাট্য সংগঠন। এরই মধ্যে ভারতের কলকাতার মঞ্চসহ ১১ টি নাটকের দুই শতাধিক মঞ্চায়ন করেছে দলটি। করোনা মহামরী বিশ্বের সর্বস্তরে আঘাত হেনে অনেকটাই স্তব্ধ করে দিয়েছে। থিয়েটার চর্চায়ও এর ব্যতিক্রম নয়। কর্মহীনতা, আর্থিক অনিরাপত্তাসহ নানান প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে প্রতিটি মানুষেরই। সে লক্ষে থিয়েটারের অবস্থা সবচেয়ে সুচনীয়। নিজের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানোর এই প্রকৃয়ায় বাংলাদেশের থিয়েটারের বর্তমান করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে কোন মতে থিয়েটারকে ধরে রাখার জন্য বড় এবং ব্যয়বহুল প্রযোজনা থেকে কিছুটা সরে এসে মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন স্বল্প ব্যয়ে, স্বল্প সময়ের মঞ্চ নাটক প্রদর্শনের এ ব্যবস্থা। দর্শক নেই, কর্মী নেই, শিল্পী শুণ্যতা সব মিলে বাংলাদেশের গ্রুপ থিয়েটারগুলো চরম ক্ষতিগ্রস্থ। তথাপিও নাট্যচর্চায় অন্তত: নিজেদেরকে এবং থিয়েটারকে গতিশীল করার প্রত্যয়ে মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন এর এমন উদ্যোগ। এক টিকিটে দুই নাটক। মানুষের সময়ের ব্যস্ততার কথা মাথায় রেখে ২৫ থেকে ৩০ মিনিটের দুটি নাটক মঞ্চায়ন করার সিদ্ধান্ত নেয় মুক্তালয় নাট্যাঙ্গন।প্রথম নাটক ‘ঘুন’ মঞ্চায়নের পর ১৫ মিনিটের বিরতী দিয়ে আবার শুরু হয় ২য় নাটক ‘চতুর ভোলা’। “ঘুন” নাটকে অভিনয় করেন প্রবেশ ক্রমানুসারে তানিয়া চরিত্রে নবাগতা আফসানা সেতু, মন্টু চরিত্রে আমিনুল হক আমীন, সবুজ- ফারহান মৃধা সাব্বির, বজলু- আমিরুল লিপন, রাবেয়া- আসমা আলম টুনি, সালেহা- শেফালী কুসুম, ইমন চরিত্রে- ইমন গমেজ। ঘুন নাটক শেষ হওয়ার পর মেক আপ ও কস্টিউম পরিবর্তনের জন্য ১৫ মিনিট বিরতী দিয়ে শুরু হয় ২য় নাটক “চতুর ভোলা”। “চতুর ভোলা” নাটকে অভিনয় করেন প্রবেশ ক্রমানুসারে ভোলা- আমিনুল হক আমীন, মিতালী- শেফালী কুসুম, মা- আসমা আলম টুনি এবং ছিনতাইকারী চরিত্রে আমিরুল লিপন। দু’টি নাটকেই আবহ সঙ্গীত পরিচালনায় ছিলেন প্রদীপ কৈরী, আলোক প্রক্ষেপণে মনির হোসেন এবং মেক আপ আর্টিস্ট রেবতী দাস। “ঘুন” নাটকটি সমসাময়ীক স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার আলবদর প্রজন্মের সমাজের উচুতলার কিছু মানুষের স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ বিষয়ক জমজমাট একটি নাটক যা আমাদের সমাজের নানান অঙ্গনের মানুষদের সচেনতার প্রতিক। শিল্পীদের সমৃদ্ধ অভিনয়ে নাটকটি দর্শকদের আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে। “চতুর ভোলা” নাটকটিও সমাজের কিছু বুদ্ধীদিপ্ত এবং মেধাবী মানুষ যে অনেক সহজ সরল সাদাসিদাভাবে জীবন যাপন করলেও তার বুদ্ধিমত্তার কারণে সমাজের কিছু দুষ্ট প্রকৃতির মানুষের অন্যায় অত্যাচারের প্রতিরোধের কারণ হয়ে দাঁড়ায় সেটারই প্রমাণ বহন করে। এখানেও নাটকটির যথাযথ উপস্থাপন এবং সুন্দর সাবলীল অভিনেয়ে দর্শকদের মুগ্ধতায় ভরিয়ে তোলে। নাটক দু’টির মধ্যে ‘ঘুন’ প্রায় ২৭ মিনিট ব্যপ্তিকাল এবং ‘চতুর ভোলা’ প্রায় ২৩ মিনিট ব্যপ্তিকালের।

ads
ads