কয়রায় সুন্দরবনের পাশ/পারমিট দিলেও জেলেদের কাটেনি দুর্দশা

Header

গত তিন মাস আগে সুন্দরবনের পাশ,পারমিট বন্ধ ঘোষণা করে দেয় বন বিভাগ। ১ সেপ্টেম্বরে আবারও সুন্দরবনের সকল ধরণের পাশ পারমিট ছেড়ে দেয় বন বিভাগ। কিন্তু জেলেদের দুর্দশা কাটেনি এখনো। গত মঙ্গলবার কয়রা উপজেলার সুন্দরবনের কোল ঘেষে গড়ে উঠা মহারাজপুর ইউনিয়নের মঠবাড়ি ও মহেশরিপুর ইউনিয়ন এ-র তেঁতুল তলারচর গ্রামে গিয়ে দেখা যায় দরিদ্র জেলেদের করুন পরিস্থিতি।

এ বিষয় তাদের সাথে আলাপ করলে বলেন দীর্ঘ তিন মাস পর সুন্দরবনের সকল ধরণের পাশ পারমিট দিলেও আশানো রুপ মাছ কাঁকড়া হচ্ছেনা। কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন সুন্দরবন যখন বন্ধ ছিলো তখন অবৈধ ভাবে প্রবেশ করে কিছু সংখ্যাক অসাধু জেলেরা সুন্দরবনের ছোটো, ছোটো খালে অবৈধ ভেষাল জাল ও কীটনাশক দিয়ে মাছ শিকার করতো এবং বর্তমানে পাশ পারমিট দিলেও যেসব জালের পারমিট আছে সে জালের ভিতরে লুকিয়ে অবৈধ জাল ও কীটনাশক নিয়ে যাচ্ছে সুন্দরবনে।

ads

আমাদের দাবি যাঁরা এসকল কাজের সাথে জড়িত তাদের কে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হোক। আরো বলেন সুন্দরবনে যাওয়ার জন্য মহাজন ও মাছ ব্যবসাহি দের কাছ থেকে দাদন নিয়ে মাছ ও কাঁকড়া ধরতে গিয়ে চাইদা মতো না হওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছি। পারমিট দেওয়া জালের ভিতরে লুকিয়ে অবৈধ জালও কীটনাশক এ-র ব্যাপারে বানিয়া খালি ও কাশিয়াবাদ ফরেস্ট স্টেশন কর্মকর্তা মোঃ আখতারুজ্জামান, নির্মল কুমার মন্ডল এ-র সাথে কথা হলে বলেন যারা ইতিপূর্বে সুন্দরবন নানা ধরনের অপর্কমের সাথে জড়িত ছিলো তারায় এধরণের অভিযোগ করছে। আমরা যখন পারমিট দেয় তখন জেলেদের কে চেকিং করার পরে সুন্দরবনে প্রবেশ করে সেই সাথে আমাদের যে সকল টহল ফাঁড়ি আছে তারাও নিয়মিত চেকিং এ-র মাধ্যমে সুন্দরবনে প্রবেশ করতে দেয় জেলেদের। এ সকল অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তি হিন।

ads

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *