কথা সাহিত্যিক সামছুদ্দীন মাহমুদের প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হলো জবা নামের মেয়েটি’ও‘অঝোর প্রেমের গল্প’ নামের দুটি গ্রন্থের

Header

রির্পোটিং মনিরুল ইসলাম মনি : গত রোববার মে ১৫ ২০২২ কথা সাহিত্যিক সামছুদ্দীন মাহমুদের ‘জবা নামের মেয়েটি’ ও ‘অঝোর প্রেমের গল্প’ নামের দুটি গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিতি হয় ভার্জিনিয়ার ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির(ওয়াস্ট) সাবেক আইগ্লোবাল ইউনিভার্সিটি অডিটোরিয়ামে।

প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ভয়েস অব এমেরিকা বাংলা বিভাগের সাবেক প্রধান রোকেয়া হায়দার, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ভয়েস অব এমেরিকার বাংলা বিভাগের ম্যানেজিং এডিটর সরকার কবিরউদ্দিন, কপিন স্টেট ইউনিভার্সিটির ন্যানোটেকনোলজির প্রফেসর ডঃ জামাল উদ্দিন, সাবেক যুগ্ম সচিব জমির উদ্দিন ও লেখক পত্নী ও আইটি কনসালটেন্ট স্যাম রিয়া।

অনুষ্ঠানটি সার্বিকভাবে পরিচালনা করেন প্রকাশনা সংস্থা স্বদেশ শৈলীর কর্ণধার এ্ন্থনী পি গোমেজ। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রিয়লাল কর্মকার, পারভীন পাটোয়ারী, মিজানুর রহমান, মিজানুর রহমান ভুইয়া, এজেএম হোসেন, আবু রুমী, কচি খান, তুহিন ইসলাম ও হাসান চৌধুরী।

আগত অতিথিরা বইয়ের বাস্তব সমালোচনা সহ মুল্যায়ন যথাযথভাবে তুলে ধরেন। প্রধান অতিথি রোকেয়া হায়দার তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন, সামছুদ্দীন মাহমুদের এই গল্পগুলি জীবন থেকে নেয়া। এই বইগুলো এমেরিকান জীবনধারার অনেক কিছুই উঠে এসেছে, যা হয়ত বাংলাদেশে থাকলে কল্পনাও করা যেতো না।

একজন আইটি বিশেষজ্ঞ হয়েও সাহিত্যের একেবারে উচ্চমার্গে যাকে আমরা বাস্তবধর্মী গল্প রচনাতে হাত দেওয়ায় তিনি লেখকের প্রচুর প্রশংসা করেন। তিনি ভবিষ্যতে আরো লেখালেখি চালিয়ে যাওয়ার জন্য লেখক সামছুদ্দীন মাহমুদের প্রতি আহবান জানান।

ads

সরকার কবির উদ্দিন বলেন, বছর ব্যবধানে সামছুদ্দীন মাহমুদের এ দুটি বই প্রকাশিত হয়েছিল। এই বইগুলির মধ্যে বাংলার সোদা মাটির গন্ধ পাচ্ছি । লেখক সামছুদ্দীন মাহমুদ এর ‘জবা নামের মেয়েটি’র গল্পগুলি আমি সব পড়েছি। আমাদের চারপাশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ভুতরুপী চরিত্রগলিকে তিনি অত্যন্ত দক্ষতার সাথে তুলে ধরেছেন। তিনি উল্লেখ করেন, যেকোন লেখক তার সমাজ কৃষ্টি কালচালার এর প্রতি দায়বদ্ধ।

তিনি লেখক সামছুদ্দীন মাহমুদ এর মধ্যে সামাজিক দায়বদ্ধতা পুরোপুরি দেখতে পান। আমাদের সমাজের চারপাশের ঘটনাগুলিকেই তিনি সুন্দর ভাবে তার গল্পে তুলে ধরেন। প্রফেসর জামালউদ্দিন, লেখক সামছুদ্দীন মাহমুদকে তার লেখালেখি আরো এগিয়ে নেওয়ার আহবান জানান।

তিনি বিশ্ময় প্রকাশ করে বলেন, আইটি বিশেষজ্ঞ হয়েও তিনি সাহিত্য চর্চা ত্যাগ করেননি, যা এক অভুতপুর্ব বিষয়। জমির উদ্দিন বলেন, লেখক সামছুদ্দীন মাহমুদ আমার ছোট ভাইয়ের মতো, মার্কিন দেশে বসবাস করে এতো কিছু করে তিনি যে গল্পগুলি লেখেছেন তাতে তাকে অভিবাদন জানাতেই হয়। স্যাম রিয়া বলেন, লেখক এর প্রত্যেকটি গল্পই চানাচুরের মতো কুড়কুরে ও মুরমুড়ে, শুরু করলে শেষ করা যায়না। যা হুমায়ুন আহমেদের গল্পে পাওয়া যেতো।

এরপর লেখককে ফুলেল সংবর্ধনা জানান জাহানারা বেগম, শাবানা হারুন, রিয়া হাসান, সাবিনা হায়দার, শারমীন ও জোনাইরা কবীর। সবশেষে বই দুটি ’জবা নামের মেয়েটি ও অঝোর প্রেমের গল্পে’র মোড়ক উম্মোচন করেন যথাক্রমে সরকার কবীরউদ্দিন ও রোকেয়া হায়দার।

ads